• সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ০২:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম
সৌদি সরকার এক সপ্তাহে ১৯ হাজারের বেশি গ্রেফতার করেছে দেশে শতাধিক মৃত্যুর পর সুপ্রিম কোর্টের কোটা সংস্কারের পক্ষে রায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন জো বাইডেন বাংলাদেশে কোটা সংস্কার আন্দোলনে কোটি কোটির আর্থিক ক্ষতির আশঙ্কা পশ্চিম বাংলায় তৃণমূলের শহিদ সভা এবার ৩১ বছরে পদার্পণ উরসুলা ভন ডার লেইন ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট হিসাবে পুনর্নির্বাচিত আমার প্রাণের বাংলাদেশ এভাবে রক্তাক্ত হতে পারে না: শাকিব খান এবার ইউরো সেরা একাদশে নেই রোনালদো,এমবাপ্পে ও হ্যারি ক্যান কোটা সংস্কার আন্দোলনে পুলিশের গুলিতে যাত্রাবাড়িতে সাংবাদিকসহ ৫ জন নিহত শেষ মূহুর্তের বৃক্ষমেলায় তেমন কোনো দেখা নেই, সাধারণ ক্রেতাদের
বিজ্ঞপ্তি
প্রিয় পাঠক আমাদের সাইটে আপনাকে স্বাগতম এই সাইটি নতুন ভাবে করা হয়েছে। তাই ১৫ই অক্টোবর ২০২০ সাল এর আগের নিউজ গুলো দেখতে ভিজিট করুন : old.bdnewseu24.com

এথেন্সের বিভিন্ন বাড়ি থেকে সঙ্ঘবদ্ধ অপরাধী ও মানবপাচারকারী চক্র আটকঃগ্রীক পুলিশ কর্তৃপক্ষ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি
আপডেট : মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০

এথেন্সের বিভিন্ন বাড়ি থেকে সঙ্ঘবদ্ধ অপরাধী মানবপাচারকারী চক্র আটকঃগ্রীক পুলিশ কর্তৃপক্ষ

গ্রীসের রাজধানী এথেন্সের প্রবাসি নির্ভর অঞ্চল ওমোনিয়ার বিভিন্ন এলাকা এবং মধ্য এথেন্সের Agios Panteleimon থেকে মানব পাচারকারি সদস্য আট জনকে গ্রেপ্তার করেছে গ্রীক পুলিশ ।
এটি সঙ্ঘবদ্ধ একটি চক্র। দীর্ঘদিন থেকে এই চক্রটি
জালিয়াতি ও অন্যান্য অপরাধের জন্য বিদেশি গ্যাং নেতা সহ আরো পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

এদেশে বৈধ রেসিডেন্স পারমিট না থাকায় আরও দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল।

মঙ্গলবার ম্যানেজমেন্ট বিভাগের পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের গ্রেপ্তার করেছেন।

আট বিদেশীর মধ্যে একজনের জার্মান আইনজীবি কর্তৃক ফৌজদারী কার্যবিধির তালিকা ভুক্ত অপরাধী রয়েছে। সে এমন একটি নেটওয়ার্কের শীর্ষস্থানীয় সদস্য, যা ইউরোপীয় ইউনিয়নের অবৈধ অভিবাসীদের আন্দোলনকে সমন্বিত ও সংগঠিত করে আসছে দীর্ঘদিন থেকে।

এই গ্যাংয়ের সদস্যদের চিহ্নিত করা হয়েছিল এবং তাদের অপরাধমূলক ক্রিয়াকলাপটি কমপক্ষে ২০১৯ সাল থেকে পর্যবেক্ষণ করে আসছিল গ্রীসের বিভিন্ন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাদা পোশাকের সদস্যরা।

এই দলের সদস্যরা কমপক্ষে দশটি অভিবাসীর সাথে বিভিন্ন অপরাধে জড়িত এবং সাতটি মামলায় তালিকা ভুক্ত থাকায় এই বিষয়টি যাচাই করে আসছিল এবং প্রতিটি মামলা থেকে বড় অংকের অর্থ গ্রহণ করত।
গ্রীক গোয়েন্দা সংস্থা আরো অবগত করেন যে এই গ্যাং এর প্রধানত লক্ষ্য হচ্ছে গ্রীসে বসবাসরত জনগণ ও পর্যটকের নিকট থেকে চুরি করা বিভিন্ন ধরনের জিনিসের মধ্যে পাসপোর্ট ও আইডি সংগ্রহ করে বিভিন্ন জাল ডকুমেন্টস তৈরি করে ইউরোপের বিভিন্ন দেশে মানবপাচার করে আসছিল বলে জানা গেছে।
একজন থেকে ৫-৭ হাজার ইউরোর বিনিময়ে মানব পাচার করে আসছে।গ্রীস ইউরোপের করিডোর হওয়ার কারণে বিভিন্ন দেশের মানব পাচার কারীরা মিলে এই অপরাধ চালিয়ে আসছিলেন বলে পুলিশ জানান।

এই সঙ্ঘবদ্ধ দলটি অ্যাথেন্সে একাধিক বাড়িও রক্ষণাবেক্ষণ করে আসছিল, এই বাড়িগুলো তে অবৈধ অভিবাসীদের নিরাপদ বাড়ি হিসাবে ব্যবহৃত হত।

অর্থাৎ জাল ভ্রমণের ডকুমেন্টস সরবরাহ বা ব্যবহারের পাশাপাশি প্রাসঙ্গিক বিমানের টিকিট ও জাল করা হতো।

তারপরে, এই সদস্যের একজন সদস্য অভিবাসীদের সাথে তাদের চূড়ান্ত গন্তব্যে যাওয়ার জন্য জার্মানি থেকে গ্রীস ভ্রমণ করেছিলেন।

ওমোনিয়া এবং Agios Panteleimon বাড়িগুলির তল্লাশী করে ৪৫ হাজার ইউরো, ট্রাভেল ডকুমেন্ট (পাসপোর্ট এবং আইডি), বোর্ডিং পাস কার্ড, ফটো, কম্পিউটার এবং মোবাইল ফোন পাওয়া গেছে এবং তাদের বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।
এছাড়াও আরো কিছু এ দলের সদস্য পর্যবেক্ষণে রয়েছে বলে জানা গেছে।
বিডিনিউজ ইউরোপ/১৭ নভেম্বর / বার্তা সম্পাদক


আরো বিভন্ন ধরণের নিউজ