• বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৪:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম
শেনজেন ভিসা ফি ১২শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে জুলাই থেকে কার্যকর ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসাবে ৩ দেশের স্বীকৃতি তেহরানে প্রয়াত প্রেসিডেন্ট রাইসির জানাজা পড়ালেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা ইমাম খামেনি শহরের কেন্দ্রস্থল এথেন্সের বাড়িতে আগুনে বৃদ্ধ ভাইবোন নিহত আগামীকাল বৃহস্পতিবার একাডেমিয়ার মিউনিসিপ্যালিটি মিউজিক থিয়েটারে লাইভ কনসার্ট হবে ভোলায় তিন উপজেলার নবনির্বাচিত তিন চেয়ারম্যান মালয়েশিয়ায় বিশেষ ব্যবস্থাপনায় কনস্যুলার সেবা প্রদানের উদ্যোগ হাইকমিশনের ঝালকাঠিতে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে উপজেলা নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপে যারা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন রাইসির মৃত্যুতে বাংলাদেশে বৃহস্পতিবার একদিনের শোক ঘোষণা
বিজ্ঞপ্তি
প্রিয় পাঠক আমাদের সাইটে আপনাকে স্বাগতম এই সাইটি নতুন ভাবে করা হয়েছে। তাই ১৫ই অক্টোবর ২০২০ সাল এর আগের নিউজ গুলো দেখতে ভিজিট করুন : old.bdnewseu24.com

শিশু মারিয়াকে দত্তক নিতে চান গোলাম রাব্বানী

নাজিম উদ্দীন ন্যাশনাল ডেক্স
আপডেট : মঙ্গলবার, ১০ নভেম্বর, ২০২০

শিশু মারিয়াকে দত্তক নিতে চান গোলাম রাব্বানী

মানবিক কাজের অনন্য উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ছাত্রলীগ ও ডাকসুর সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। একজন ছাত্র নেতা যদি এমন মানবিক ও জনকল্যাণমূলক কাজ করতে পারে তাহলে সমগ্র দেশের নেতারা কি করে? এমন প্রশ্ন আজ রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।
এমনই একটি মানবিক কাজের দৃষ্টান্ত হচ্ছে
সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার হেলাতলা ইউনিয়নের খলিসা গ্রামে পরিবারের চার সদস্য মা, বাবা, ভাই ও বোনকে হারানো ঘটনায় ভাগ্যক্রমে বেঁচে যাওয়া পাঁচ মাসের শিশু মারিয়াকে দত্তক নিতে চান বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর সাবেক জিএস গোলাম রব্বানী।

রোববার (৮ নভেম্বর) দিবাগত মধ্যরাতে তিনি মারিয়াকে দেখতে খলসি গ্রামে ইউপি সদস্য নাসিমা খাতুনের বাড়িতে যান।

তিনি সেখানে বেশকিছু সময় অবস্থান নিয়ে শিশু মারিয়ার খোঁজখবর নেন এবং তার সাথে খেলায় মেতে ওঠেন। এ সময় তিনি অপেক্ষমান গণমাধ্যম কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি মারিয়াকে দত্তক নিতে চাই। মারিয়ার ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করাটা খুবই জরুরী। এজন্য তার একজন ভাল অভিভাবক দরকার। যিনি তাকে আদর্শবান করে গড়ে তুলবেন।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে মারিয়া ইউপি সদস্য নাসিমা খাতুনের কাছে আছে এবং ভাল রয়েছে। তিনি মারিয়াকে মায়ের মমতা দিয়ে আগলে রেখেছেন। তারপরও মারিয়াকে আইনগতভাবে দত্তক নিতে আমি ইচ্ছুক।

গোলাম রব্বানী বলেন, আমি মর্মান্তিক ঘটনাটির পরপরই মারিয়ার কথা শুনে ইউপি সদস্য নাসিমা খাতুনের সাথে যোগাযোগ করেছিলাম। সরসময় তার খোঁজখবরও রাখার চেষ্টা করি।

জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, মারিয়াকে যার কাছে দেওয়া হোক না কেন, কোন পরিবার তার জন্য গ্রহণযোগ্য, সেটা যেন বিবেচনা করা হয়৷ এমন পরিবারের কাছে যেন তাকে না দেওয়া হয়, যে পরিবারে বেড়ে উঠতে তার সমস্যা হবে ৷
সাতক্ষীরা জেলার আওয়ামী লীগের সিনিয়র একজন নেতা নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বলেন বাংলাদেশের সকল নেতৃবৃন্দের মধ্যে গোলাম রাব্বানীর মত এমনই জনকল্যাণমুখী কর্মে লিপ্ত থাকলে জননেত্রী শেখ হাসিনার সুনাম দিন দিন আরো বৃদ্ধি পেত।

বিডিনিউজ ইউরোপ/১০ নভেম্বর/বার্তা সম্পাদক


আরো বিভন্ন ধরণের নিউজ