• সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
লিবিয়া থেকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে ১৪৪ জন প্রবাসীকে গ্রিসের আবাসন সংকট নিরসনে গোল্ডেন ভিসার বিনিয়োগ বৃদ্ধির ঘোষণা গ্রিস ও বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক এবং শিক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বিষয়ক চুক্তির অগ্রগতি নেই হাইকোর্টে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন সাদিক আব্দুল্লাহ জার্মানির মিউনিখের ইউরোপ বিএনপির ব্যাপক বিক্ষোভ প্রদর্শন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ইইউ প্রেসিডেন্ট উরসুলার অভিনন্দন তিউনিসিয়া উপকূলে নৌকা ডুবির ঘটনায় বাংলাদেশী নিহত ৮ আহত ২৭ জীবিত উদ্ধার এলাকার উন্নয়নে প্রত্যেক সংসদ সদস্যরা পাবেন ২০ কোটি টাকা ড. মুহাম্মদ ইউনূস ও আমাদের সমাজ রাজনীতির কারণে পুতিনের শত্রুতেও পরিণত হন নাভালনি
বিজ্ঞপ্তি
প্রিয় পাঠক আমাদের সাইটে আপনাকে স্বাগতম এই সাইটি নতুন ভাবে করা হয়েছে। তাই ১৫ই অক্টোবর ২০২০ সাল এর আগের নিউজ গুলো দেখতে ভিজিট করুন : old.bdnewseu24.com

টেকনাফে নৌ-পুলিশের অভিযানে ১০,হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংস

জুবাইরুল ইসলাম জুয়েল টেকনাফ
আপডেট : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০

টেকনাফে নৌ-পুলিশের কড়া অভিযানে ১০,হাজার। মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংস।

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়া উপকূলীয় অঞ্চলের পর্যটন নৌকার ঘাঁটে আজ বেলা ২:00 মি:সময়, নৌ-পুলিশের ইন্সফেক্টর মো:আব্দুল্লাহর নেতৃত্বে ১০,০০০ হাজার মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংস করেছে।

জানা যায় আজ (৪ নবেম্বর ) বুধবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত এই অভিযানটি চলমান রয়েছিল।
এদিকে ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত টানা ২২ দিন জেলেরা, সাগরে মাছ ধরার উপরে সরকারের নিষেধাজ্ঞা অপেক্ষা করে উপকূলীয় বিভিন্ন নৌকার ঘাঁটে অবৈধ কারেন্ট জাল মজুত করেন।
এদিকে নৌ-পুলিশের অত্যন্ত দক্ষ ও চৌকস অফিসার ইন্সফেক্টর মো:আব্দুল্লাহ বলেন,জেলেরা সরকারের নিয়ম নীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ২২ দিন পর্যন্ত সাগরে মাছ ধরার উপরে নিষেধাজ্ঞা থাকলে ও বন্ধের দিন শেষ হবার আগেই তারা সাগরে মাছ ধরতে যায়।
মাছ ধরার খবর পেয়ে টেকনাফের নৌ-পুলিশের একটি বিশেষ দল বাহারছড়ার বিভিন্ন ঘাঁটে টহল দেওয়ার সময় ঘাঁট থেকে পৃথক অভিযানে অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে মৎস্য সম্পদ রক্ষা করেন।

এদিকে ইলিশের উৎপাদন বাড়াতে ও  ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতে ২২ দিন সারাদেশের নদ-নদীতে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করা হয়েছিল।
গেল,(১৭ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবারে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।
মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা ইফতেখার হোসেন স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চলতি বছর ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত মোট ২২ দিন ইলিশ প্রজনন ক্ষেত্রে ইলিশসহ সব ধরনের মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এসময় দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, বিপণন, পরিবহন, ক্রয়-বিক্রয়, বিনিময় এবং মজুতও নিষিদ্ধ থাকবে।
উল্লেখ্য, প্রতিবছর আশ্বিনের ভরা পূর্ণিমার আগে-পরে মিলিয়ে মোট ১৫ থেকে ১৭ দিন হচ্ছে ইলিশের ডিম ছাড়ার আসল সময়। এসময় সাগর থেকে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ নদীতে ছুটে আসে। এই সময়কে বিবেচনায় নিয়ে প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও মোট ২২ দিন ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার। এ সময় ইলিশকে স্বাচ্ছন্দ্যে ডিম ছাড়ার সুযোগ দিতেই সরকার দেশের সব নদ-নদীতে ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরা বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে।
ইলিশ ধরা বন্ধ থাকাকালীন সারাদেশের তালিকাভুক্ত জেলেদের ভিজিএফ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। সরকারের নির্দেশ অমান্য করে কেউ যাতে এ সময় মাছ ধরতে নদীতে নামতে না পারে, সেজন্য নদ-নদীতে ভ্রাম্যমাণ আদালতও পরিচালনা করা হবে।

বিডিনিউজ ইউরোপ /৪ নভেম্বর / বার্তা সম্পাদক


আরো বিভন্ন ধরণের নিউজ